ব্লগবিডি.কম https://www.vlogbd.com/2022/07/blog-post_26.html

রাঙ্গামাটি জেলার দর্শনীয় স্থান ইতিহাস ও ঐতিহ্য


Rangamati Districtচট্রগ্রাম বিভাগের প্রশাসনিক অঞ্চল।রাঙ্গামাটি 'বাংলাদেশের অন্যান্য জেলা থেকে আয়তনে বড়।
পার্বত্য বান্দরবান,খাগড়াছড়ির ও রাঙ্গামাটি জেলা কে নিয়ে পার্বত্য অঞ্চল গঠিত।রাঙ্গামাটি জেলায় আদিবাসী গোষ্ঠী,মারমা,চাকমা,ত্রিপুরা পাংখুয়া পাহাড়ি উপজাতিদের বসবাস।এ জেলায় রয়েছে পাহাড়,নদী,ঝর্ণা,
ঝুলন্ত সেতু আদিবাসীদের ক্যালচারাল একাডেমি,জাদুঘর সহ বেশ কিছু পর্যটন স্পর্ট রয়েছে।চিত্রার্কষের 
সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে,ভ্রমণপ্রিপাসুরা ছুটে যায় পার্বত্য রাঙ্গামাটি সৌন্দর্য উপভোগ করতে।
বাংলাদেশে সহ বিভিন্ন বিভিন্ন রাস্ট্র  থেকে ছুটে আসে পাহাড়ি কন্যা 
পার্বত্য রাঙ্গামাটির সৌন্দর্য উপভোগ করতে।


Rangamati Districtচট্রগ্রাম বিভাগের প্রশাসনিক অঞ্চল।রাঙ্গামাটি 'বাংলাদেশের অন্যান্য জেলা থেকে আয়তনে বড়। পার্বত্য বান্দরবান,খাগড়াছড়ির ও রাঙ্গামাটি জেলা কে নিয়ে পার্বত্য অঞ্চল গঠিত।রাঙ্গামাটি জেলায় আদিবাসী গোষ্ঠী,মারমা,চাকমা,ত্রিপুরা পাংখুয়া পাহাড়ি উপজাতিদের বসবাস।এ জেলায় রয়েছে পাহাড়,নদী,ঝর্ণা, ঝুলন্ত সেতু আদিবাসীদের ক্যালচারাল একাডেমি,জাদুঘর সহ বেশ কিছু পর্যটন স্পর্ট রয়েছে।চিত্রার্কষের  সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে,ভ্রমণপ্রিপাসুরা ছুটে যায় পার্বত্য রাঙ্গামাটি সৌন্দর্য উপভোগ করতে। বাংলাদেশে সহ বিভিন্ন বিভিন্ন রাস্ট্র  থেকে ছুটে আসে পাহাড়ি কন্যা  পার্বত্য রাঙ্গামাটির সৌন্দর্য উপভোগ করতে।


রাঙ্গামাটি জেলার দর্শনীয় স্থান সমূহ

আসামবস্তি ব্রীজ 
কংলাক পাহাড়
ফুড়মোন পাহাড়
উপজাতীয় জাদুঘর
কাপ্তাই জাতীয় উদ্যান
কাপ্তাই হ্রদ
ঝুলন্ত ব্রীজ
রাজবন বিহার
সাজেক ভ্যালি
হাজাছড়া ঝর্ণা
চাকমা রাজবাড়ি
লাভ পয়েন্ট 
সহ বেশ কিছু উল্ল্যেখযোগ্য রাঙ্গামাটি জেলার দর্শনীয় স্থান রয়েছে।

রাঙ্গামাটি জেলার ভৌগলিক পরিচিতি উত্তরে ভারতের ত্রিপুরা ও মিজোরাম,দক্ষিণে বান্দরবান,পূর্বে মিজোরাম ও পশ্চিমে চট্রগ্রাম ও খাগড়াছড়ি জেলা অবস্থিত।
রাঙ্গামাটি জেলার নামকরণের ইতিহাস 
রাঙ্গামাটি জেলার নামকরণের বেশ কিছু মতবেদ রয়েছে তবে অনেকের ধারনা স্বচ্ছ পানি যখন লাল বা রাঙ্গামাটির উপর দিয়ে ঢাল বেয়ে জলপ্রপাত ঘটাতো,তখন পানি আরও বেশি লাল দেখাত,তাই লোক মুখে রাঙ্গামাটি নাম করণ করে।
রাঙ্গামাটি জেলার ইতিহাস 
ইতিহাস ও ঐতিহ্য রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার পূর্ব নাম ছিল কার্পাস মহল।
১৯৮৩ সালে রাঙ্গামাটি কে জেলায় উন্নতি করে,পার্বত্য জেলা তিনটির মধ্যে একটি।
রাঙ্গামাটি জেলা কিসের জন্য বিখ্যাত 
রাঙ্গামাটিতে বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বিভিন্ন যায়গা থেকে রাঙ্গামাটির উচুঁ পাহার ৩৩৫ ঝুলন্ত সেতু,সহ পাহাড় ঝর্ণার সৌন্দর্য উপভোগ করতে ছুটে আসে।

রাঙ্গামাটির বিখ্যাত খাবার
রাঙ্গামাটি জেলায় প্রচুর পরিমানে কমলা চাষ হয়ে থাকে,জুম চাষের পাশাপাশি এখানে অনেক কমলার বাগান রয়েছে,রাঙ্গামাটি জেলার কমলা অনেক সুস্বাদু খেতে।
রাঙ্গামাটি জেলা কতটি উপজেলা নিয়ে গঠিত?
১০টি উপজেলা নিয়ে গঠিত।
রাঙ্গামাটি জেলার উপজেলা সমুহের নাম কী?
কাউখালী,কাপ্তাই,জুরাছড়ি,নানিয়ারচর,বরকল,বাঘাইছড়ি,বিলাইছড়ি,রাঙ্গামাটি সদর,রাজস্থলী,লংগদু।
রাঙ্গামাটি উপজেলায় কয়টি থানা আছে?
১২টি থানা 
রাঙ্গামাটি উপজেলার থানা সমুহের নাম কী?
সাজেক,চন্দ্রঘোনা,কাউখালী,কাপ্তাই,জুরাছড়ি,নানিয়ারচর,বরকল,বাঘাইছড়ি,বিলাইছড়ি,রাঙ্গামাটি সদর,রাজস্থলী,লংগদু।
রাঙ্গামাটি জেলার পৌরসভার কয়টি?
২টি
রাঙ্গামাটি জেলার পৌরসভার নাম কী?
বাঘাইছড়ি,রাঙ্গামাটি।
রাঙ্গামাটি জেলায় কতটি ইউনিয়ন আছে?
৫০টি
রাঙ্গামাটি জেলায় কয়টি মৌজা আছে?
১৫৯টি।
রাঙ্গামাটি জেলায় কতটি গ্রাম আছে?
১৩৪৭টি।
রাঙ্গামাটি জেলায় কয়টি সংসদীয় আসন আছে?
১টি।
রাঙ্গামাটি জেলার সংসদীয় আসনের নাম কী?
২৯৯ পার্বত্য রাঙ্গামাটি জেলা নিয়ে সংসদীয় আসন গঠিত হয়।
রাঙ্গামাটি জেলার আয়তন কত?
৬,১১৬.১৩বর্গকিমি(২,৩৬১.৪৫বর্গমাইল)
রাঙ্গামাটি জেলার জনসংখ্যা কত?
৬,২০,২১৪ জন।
রাঙ্গামাটি জেলার সাক্ষরতার হার কত?
৪৬.৬০%
রাঙ্গামাটি জেলার প্রশাসনিক কোড কত?
 ২০৮৪.
রাঙ্গামাটি জেলার পোস্ট কোড কত?
৪৫০০.

রাঙ্গামাটি জেলার প্রধান নদ-নদী

কর্ণফুলী নদী,ঠেগা নদী,কাপ্তাই হ্রদ.

কর্ণফুলী নদীর উপনদী

কাচালং,মাইনী,চেঙ্গী,ঠেগা,সলক,রাইংখ্য।

রাঙ্গামাটি জেলার অর্থনীতি কী?
পাহাড়ি আদিবাসীরা জুম চাষের মাধ্যমে কৃষি পন্য উৎপাদন করে থাকে।
প্রধান শস্য:-ধান,পাট,আলু,তুলা,ভুট্রা,সরিষা।
রাঙ্গামাটি জেলায় প্রচুর পরিমাণে বনজ এ ফলের গাছ রয়েছে।
রাঙ্গামাটি জেলার প্রধান ফল?
কাঁঠাল,আনারস,আম,কমলা,লিচু,
জাম,কাজু বাদাম।
রাঙ্গামাটি জেলায় বেশ কিছু শিল্প কারখানা রয়েছ,কর্ণফুলী কাগজের কল,কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ,রেয়ন কল,ঘাগড়া বস্ত্র কারখানা,উপজাতীয় বেইন শিল্প,বাঁশ ও বেতের হস্তশিল্প,হাতির দাঁত শিল্প।
রাঙ্গামাটি জেলার সংস্কৃতি 
পার্বত্যঅঞ্চলে চাকমাদের প্রধান বিঝু উৎসব।
চৈত্র মাসের সংক্রান্তির শেষ দুদিন ও পহেলা বৈশাখের তিনদিন বিঝু উৎসব চলে।
যোগাযোগ ব্যবস্থা-রাঙ্গামাটি জেলা
রাঙ্গামাটি জেলার প্রধান সড়ক চট্রগ্রাম-রাঙ্গামাটি মহাসড়ক দিয়ে সব ধরনের যানবাহনে যোগাযোগ করা যায়।


পরিচিতদেরকে জানাতে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

অর্ডিনারি আইটি কী?