ক্যাটকিন ড্রাম রেস্টুরেন্ট পার্ক হবিগঞ্জ.

হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার ভবানিপুর হাওরের পাশে প্রায় ৫ একের  জমি নিয়ে নির্মান করা হয়েছে একটি রেস্টুরেন্ট সম্মলিত পার্ক. ক্যাটকিন পার্কটি হবিগনঞ্জ বনাম বানিয়াচং রোডের ভবানীপুর গ্রামের রাস্তার পাশে অবস্থিত.হবিগঞ্জ জেলা শহর থেকে ৭ কিলোমিটার দুরে.




চারদিকে দৃস্টিনন্দনভাবে সাজানো হয়েছে,যাতে পর্যটকরা  পার্ক টিতে  ঘুরে স্বাচ্চন্দবোধ করে. পার্কে দৈনিক শত শত মানুষ ঘুরতে আসে.নিরিবিলি পরিবেশ হওয়াতে এখানে অবসর সময় কাটানোর দারুন সুযোগ রয়েছে. 

পার্কটির তিন দিকে হাওর বেস্টিত হওয়ায় পর্যটকরা হাওরের বিকাল বেলার সূর্য্য ডুবার   দূর্শ্য উপভোগ করতে পারে. 

 


ক্যাটকিন ড্রাম রেস্টুরেন্ট এ কি আছে দেখার মত?

রেস্টুরেন্টে রয়েছেদর্শনার্থীদের জন্য ছাউনি দিয়ে কয়েকটি ঘর,ঘরগুলো বানানো হয়েছে বাঁশ, দিতে এক সাথে ৬-৮ জন বসতে পারে. সারি সারি কয়েক টি বসার ছাউনি রয়েছে যেখানে আগত পর্যটকরা বিশ্রাম নেওয়ার জন্য এ গুলো বানানো হয়েছে. পার্কের এক কোনায় রয়েছে লাভ সম্মলিত একটি প্রতিক যে টি পার্ক কে বেশি আকর্ষনীয় করে তুলেছে, পুরু পার্কে কাশফুলের অসংখ্য কাশফুল রয়েছে, পার্কের পুকুরে একটি নৌকা রয়েছে এখানে ছবি তুলার সুব্যবস্থা রয়েছে.. পার্কের ভিতর তিন টি পাকাঁ রাস্তা রয়েছে, রাস্তার মধ্যে সারি সারি সাজানো ইলেকট্রিকাল হারিকেন এগুলো সন্ধ্যার পর আলো জ্বলে তখন রাতের পরিবেশটা আরও সুন্দর হয়ে উঠে. সবুজ গাছ-গাছালি চারদিকে লাগানো, 

পার্কের মধ্যে অনেক জাতের ঘাস রয়েছে এর মধ্যে বিদেশি জার্মান ঘাস রয়েছে যেখানে আগত পর্যটকরা মাঠিতে বসে যেন আড্ডা দিতে পারে.

 কী খাবার  খাবেন: ক্যাটকিন ড্রাম রেস্টুরেন্ট এর মধ্যে অনেক ধরনের খাবারের মেনু রয়েছে এর মধ্যে আপনাদের যে খাবার পছন্দ সেটি খেতে পারবেন, মিনি বার্গার, জুস,লাচ্চি, কোমল পানিয় ইত্যাদি.

প্রবেশমূল্য: ক্যাটকিন ড্রাম রেস্টুরেন্টে প্রবেশমুল্য ৫০ টাকা,তবে ভেতরের রেস্টুরেন্টে খাওয়ার সময় ৫০টাকা পেইড হিসেবে দিতে পারবেন. 

Youtube link


কিভাবে যাবেন:ঢাকার সায়েদাবাদ, মহাখালী থেকে হবিগঞ্জ শরহরে সরাসরি বাস যারায়ত করে,বাসে করে হবিগঞ্জ শহরে আসতে হবে.

ভাড়া:৩০০/৩৫০০টাকা 

ট্রেন: ঢাকার কমলাপুর থেকে শায়েস্তাগন্জ আসতে হবে.

ভাড়া:২০০/৩০০টাকা 

শায়েস্তাগঞ্জ থেকে হবিগঞ্জ লোকাল বাস অথবা সিএনজি করে হবিগঞ্জ আসা যায়.হবিগঞ্জ শহর থেকে বানিয়াচং ভবানীপুর রাস্তার পাশেই ক্যাটকিন ড্রাম রেস্টুরেন্ট .

ভাড়া: শহর থেকে সি এনজি /টমটম করে যেতে পারবেন ভাড়া ৩০টাকা. 

কোথায় থাকবেন: বানিয়াচংয়ে আরও দর্শনীয় স্থান আছে সেগুলো দেখে রাতে হবিগঞ্জ শহরে ভালো মানের হোটেল আছে সেখানে থাকতে পারবেন.

কোথায় খাবেন: বানিয়াচং বাজারে খাবার খাওয়ার ভালো হোটেল আছে সেখানে খেতে পারবেন.

1 comment

vlogbd said...

good post

Powered by Blogger.